রবিবার , ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম :
আলমডাঙ্গা বণিক সমিতির নির্বাচনে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী কামাল হোসেন ন্যাক্কারজনক পাশবিক এই ঘটনায় আমি ক্ষুব্ধ ও ব্যাথিত নাদেল এমসি কলেজে স্বামীকে বেঁধে গণধর্ষণ গ্রেফতার নেই একজনও এমসি কলেজের সাবেক তিন ছাত্র সংসদের দায়িত্বশীলের বিবৃতি চরফ্যাশনে সাবেক ছাত্রদল সভাপতি শহীদ আব্দুর রাজ্জাকের ৫ম মৃত্যু বার্ষিকীতে ছাত্রদলের কবর জিয়ারত ও দোয়া মুনাজাত করোনায় বাড়ছে বাল্যবিবাহ চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রকাশ্যে মাদক সেবনের অপরাধে গ্রেফতার ১১ মাদকসেবী চাঁপাই গ্রামীণ পাবসস’র ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের দুই প্যানেলে প্রার্থী ২২ জন চাঁপাইনবাবগঞ্জে অর্থের বিনিময়ে ধর্ষণের রফাদফা করার ক্ষোভে কিশোরীর আত্মহত্যা গৌরীপুরে সেফটিক ট্যাংকে নেমে দু’জনের মৃত্যু
মোট আক্রান্ত

১,৯৯,৩৫৭

সুস্থ

১,০৮,৭২৫

মৃত্যু

২,৫৪৭

ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর

গৌরীপুরে সরকারী গুদামে ধান বিক্রিতে আগ্রহ কমছে কৃষকদের




ময়মনসিংহ (গৌরীপুর) প্রতিনিধি:  ময়মনসিংহের গৌরীপুর বাজারে ধানের বাজার দর সরকারী দরের সাথে প্রায় সমান হওয়ায় ও ময়েশ্চারের (শুকনো) কোন নির্ধারিত বিধি নিষেধ না থাকায় কৃষকরা গুদামে ধান বিক্রি না করে বাজারেই বিক্রি করে দিচ্ছেন। ফলে এ মৌসুমে সরকারী ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

ধান মহাল ঘুরে দেখা গেছে’ বোরো ধানের ভরা মৌসুমেও বাজারে ধানের মূল্য অন্যান্য বছরের তুলনায় রেকর্ড পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়া এ উপজেলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে এখন স্বস্থির হাসি বিরাজ করছে। সোমবার, মঙ্গলবার (০১ও ০২ জুন) গৌরীপুর বাজারে বিআর-২৮ প্রতি মন ধান ৮শ ৭০ টাকা থেকে ৯ শ ২০ টাকা ক্রয় করছে ব্যবসায়ীরা।

এছাড়া বিআর-২৯ ধান ৮শ থেকে-৮শ ৫০ টাকা মন ও মোটা জাতের ধান ৭ শ ৫০ থেকে ৮ শ টাকা মন দরে বিক্রি করছে কৃষকরা। অন্যদিকে ফসলের ক্ষেত থেকে সদ্য কাটা ভেজা ধান ৭ শ টাকা মন দরে বাজারে বিক্রি হতে দেখা গেছে। এ কারণে শুধু শুধু শুকানোর দুর্ভোগে না গিয়ে ছোট-বড় ও প্রান্তিক কৃষকরা সরকারি খাদ্য গুদামে ধান বিক্রি করার মত আগ্রহ দেখাচ্ছে না।

এ ক্ষেত্রে সরকারি বোরো ধান সংগ্রহ অভিযানের সফলতা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। সরকারী গুদামে ১৪% শুকনো ধান বিক্রি করতে হয় ১,০৪০ টাকা মন। কিন্তু বাজারে শুকানোর নির্ধারিত কোন মান না থাকায় সেই একই ধান বিক্রি হচ্ছে ৯শ ২০ টাকা মন। উল্লেখ্য, গতবছর এই সময়ে প্রকারভেদে কৃষকদেরকে প্রতিমন ধান ৪শ ৫০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৬শ ৫০ টাকায় বিক্রি করতে হয়েছে।

এ ব্যপারে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা মিল মালিক সমিতির সভাপতি ও ধান ব্যবসায়ী ইকবাল হোসেন জুয়েল এর সাথে কথা বললে, তিনি বলেন আমি একজন ব্যবসায়ী হিসেবে বলছি না’ একজন কৃষক বান্ধব হিসেবে বলছি এ মৌসুমে ধান বিক্রিতে কৃষক বেশী দর পাওয়ায় আমি অত্যন্ত খুশি। কারণ বিগত মৌসুমগুলোতে ধান বিক্রি করে ফলনের খরচ উঠাতে গিয়ে কৃষকদেরকে হিমশিম খেতে হয়েছে। অনেকেই উৎপাদন ব্যয়ও উঠাতে পারেনি। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে হাজারো প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষক। কিন্তু এ মৌসুমে কৃষকরা বাজারে অধিক দরে ধান বিক্রি করে পুষিয়ে নিচ্ছে আগের ক্ষতি। বাজারে ধান বিক্রি করে হাসি মুখে ঘরে ফিরছে তারা।

এ ব্যপারে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সরকার জানিয়েছেন’ কৃষকরা বাজারে ধান বিক্রি করলেও সরকারী ধান সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অবশ্যই অর্জিত হবে। তিনি বলেন এখন পর্যন্ত অনেক কৃষক গুদামে ধান দেয়ার ব্যপারে আমাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত




ই-মেইলে সর্বশেষ সংবাদ

বিনামূল্যে সর্বশেষ সংবাদ সরাসরি আপনার ই-মেইলে পেতে আজই সাবস্ক্রাইব করুন!

তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক।
আমাদের গোপনীয়তার নীতি




এক ক্লিকে জেনে নিন বিভাগীয় খবর




করোনা তথ্য
দেশে আক্রান্ত
১,৯৯,৩৫৭
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
দেশে সুস্থ
১,০৮,৭২৫
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
দেশে মৃত্যু
২,৫৪৭
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
বিশ্বে মৃত্যু
৫,৯৩,০৭২
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
বিশ্বে আক্রান্ত
১,৩৯,২১,৬৯৯
Developed By Ariful
©মেঘনা নিউজ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত