রবিবার , ২৬শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

মোট আক্রান্ত

১৯,৬৩,৪৯৩

সুস্থ

১৯,০৬,৫১৯

মৃত্যু

২৯,১৩৮

২৫ জুন, ২০২২ | ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর

নতুন বাজেটের কারণে দাম বাড়তে পারে কম্পিউটার যন্ত্রাংশের

<script>” title=”<script>


<script>

আমদানি করা ল্যাপটপ, প্রিন্টার ও টোনার কার্টিজের ওপর প্রস্তাবিত ১৫% মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) প্রত্যাহারের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন জানিয়েছে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি।

মঙ্গলবার (২২ জুন) বাজেট-পরবর্তী প্রতিক্রিয়ায় এক বিবৃতিতে সংস্থাটি ১৯৯৮ সালে কম্পিউটারের ওপর সব ভ্যাট এবং ট্যাক্স বাতিলের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ের তথ্য প্রযুক্তিতে অগ্রণী উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, বাইরের দেশের সঙ্গে তুলনা করলে দেখা যায়, একই কম্পিউটারের সব উপাদানই আলাদাভাবে কেনার জন্য অতিরিক্ত খরচ প্রয়োজন হয়। ফলে একই কম্পিউটারের দাম বিদেশ এবং বাংলাদেশে ভিন্ন হয়।

এ কারণে বাংলাদেশে ৯৯% ল্যাপটপ অ্যাসেম্বল অবস্থায় আমদানি করা হয়। তবে স্থানীয়ভাবে অ্যাসেম্বল এবং তৈরি করা ল্যাপটপের জন্য ইতোমধ্যে ১৪% পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, তবে দুঃখের বিষয় এই যে, ২০২২–২৩ অর্থবছরের জন্য প্রস্তাবিত বাজেটে আমদানি করা ল্যাপটপ, প্রিন্টার এবং টোনার কার্টিজের ওপর ১৫% ভ্যাট আরোপের প্রস্তাব করা হয়েছে। নতুন মূসক আরোপের কারণে ল্যাপটপ কম্পিউটার আমদানির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য মোট করভার দাঁড়াবে ৩১%।

সংস্থাটির পক্ষ থেকে বলা হয়, করোনাভাইরাস মহামারি এবং সেই সঙ্গে ক্রমবর্ধমান শিপিং খরচের কারণে এরই মধে আমদানি করা ল্যাপটপের দাম ৩০% বেড়েছে। আর সাম্প্রতিক সময়ে ডলারের মূল্যবৃদ্ধির ফলে বাংলাদেশে কম্পিউটারের দাম অতিরিক্ত ১০% বেড়েছে।

বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির বিবৃতিতে বলা হয়, আমাদের আশঙ্কা, অতিরিক্ত ১৫% ভ্যাট আরোপের ফলে  ল্যাপটপ-কম্পিউটারের দাম মোট ৫৫% বাড়বে। ফলে একটি ল্যাপটপ কম্পিউটারের ন্যূনতম মূল্য মধ্যবিত্ত-নিম্ন মধ্যবিত্ত শিক্ষার্থী, ছোট ও মাঝারি ব্যবসা এবং ফ্রিল্যান্সারদের নাগালের বাইরে চলে যাবে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, নাগালের বাইরে যাওয়া কম্পিউটারকে ১৯৯৮ সালে করমুক্ত করার মাধ্যমে সবার জন্য সহজলভ্য করা হয়েছিল। ফলে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, ব্যবসা, অফিসের কাজসহ সব ক্ষেত্রেই কম্পিউটার নিত্যপ্রয়োজনীয় একটি জিনিসে পরিণত হয়ে পড়েছে।

এতে আরও বলা হয়, করোনাভাইরাস মহামারি চলাকালে বাংলাদেশের বিভিন্ন জরুরি কার্যক্রম যেমন:-স্বাস্থ্যসেবা, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সেবা, দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালনা, স্কুলের অনলাইন ক্লাস সর্বোপরি জনজীবনকে সচল রাখার মতো সবকিছুই কম্পিউটারের মাধ্যমে পরিচালিত হয়েছিল।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

GloboTroop Icon
পাঠকের মতামত

ই-মেইলে সর্বশেষ সংবাদ

বিনামূল্যে সর্বশেষ সংবাদ সরাসরি আপনার ই-মেইলে পেতে আজই সাবস্ক্রাইব করুন!

তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক।
আমাদের গোপনীয়তার নীতি




এক ক্লিকে জেনে নিন বিভাগীয় খবর




করোনা তথ্য
দেশে আক্রান্ত
১৯,৬৩,৪৯৩
২৫ জুন, ২০২২
করোনা তথ্য
দেশে সুস্থ
১৯,০৬,৫১৯
জুন ২৫, ২০২২
করোনা তথ্য
দেশে মৃত্যু
২৯,১৩৮
জুন ২৫, ২০২২
করোনা তথ্য
বিশ্বে মৃত্যু
৬৩,৪৯,৭০৪
জুন ২৫, ২০২২
করোনা তথ্য
বিশ্বে আক্রান্ত
৫৪,৮৩,২২,১৬২
জুন ২৫, ২০২২
©মেঘনা নিউজ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত