বুধবার , ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম :
দূর্নীতি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে ভোলার শশীভূষণে সাবেক অধ্যক্ষর বিরুদ্ধে এজাহার দাখিল বড়লেখা পৌর নির্বাচনে ৩ জন মেয়র প্রার্থী সহ ৪৩ জনের মনোনয়নপত্র দাখিল বগুড়ার আদমদীঘিতে নাগরনদে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় দুই জনের কারাদন্ড পীরগাছা থেকে চোরাই মোটরসাইকেল উদ্ধার বগুড়ার সান্তাহারে ১০০পিচ ইয়াবা ট্যাবলেটসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার সাঘাটায় বাঁধের রেগুলেটর নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের উদ্বোধন নাগরপুরে ৯টি ঝুঁকি পূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক ভবন সিলগালা করল কর্তৃপক্ষ বড়লেখায় বিষপানে কিশোরী মাছুমার আত্মহত্যা সিরাজগঞ্জে দেশের সর্ববৃহৎ বঙ্গবন্ধু রেলসেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিরপুরের সুলতানপুর এলাকায় ৩৪ দিনে নিখোঁজ-০২

কুমিল্লার দাউদকান্দি পৌরসভা নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ৫ জন




বেশি দিন বাকী নেই পৌরসভা নির্বাচনের। প্রস্তুতি ঠিক থাকলে হয়তো নভেম্বরের শেষ নাগাদ তফসিল ঘোষণা হতে পারে পৌরসভা নির্বাচনের। কারণ এর মধ্য বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ডিসেম্বরের মধ্য সারা দেশের পৌরসভার নির্বাচন করার তাগিদ দিয়ে সময় সীমা বেঁধে দিয়েছেন।

বর্তমান পৌর মেয়র নাইম ইউসুফ সেইন বিগত নির্বাচনে নৌকার টিকেট পেয়ে খুব সহজেই বিজয়ী হয়েছিলেন। শপথ নেয়ার পর থেকে আজোবধি তিনি ৫ বছরে দাউদকান্দি পৌরসভার রাস্তাঘাট, কালভার্ট, রাস্তার দু’ধারে সোলার লাইটিং,রাস্তার ড্রেনেজ করে পয়ো:নিষ্কাশন ব্যবস্থা করে জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করেছেন। গেলো ৫ বছরে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে প্রায় শতো কোটি টাকার কাজ করেছেন। বিভিন্ন ওয়ার্ডের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিজেই তদারকি করেন।

দাউদকান্দি পৌরসভাকে একটি আদর্শ পৌরসভা বিনির্মাণে তার আপ্রাণ চেষ্টার কমতি নেই। পৌর মেয়র নাইম ইউসুফ সেইন বলেন, ‘আমার পৌরসভা প্রতিটি ওয়ার্ডের অনেক বেকার যুবকদের আমি কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছি। আমি পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে দৃশ্যমান উন্নয়ন করেছি। করোনাকালীন দু:সময়ে পৌরবাসীর পাশে ছিলাম।আমি শতভাগ আশাবাদী উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিবেন।’ সাবেক মেয়র হাজী আব্দুর সাত্তার। ছিলেন হাসান পুর কলেজের সাবেক ভিপি। ছিলেন জাঁদরেল ছাত্র নেতা। গত ২০১৪ সালে পৌরসভা উপ-নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। দায়িত্ব পেয়েছিলেন দেড় বছরেরও বেশি। এ অল্প সময়ে তিনি পৌরসভায় উন্নয়ন করেছেন অভাবনীয়। তিনিও এবার মেয়র পদে লড়তে আ.লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী। জনমত জরীপে তিনি ভালো অবস্থানে আছেন। দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার তার জন্য আশীর্বাদ। তিনিও আ.লী থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পেতে বিভিন্ন মহলে দৌঁড়ঝাপ করছেন।

ভিপি আব্দুস সাত্তার জানান, ‘আমি পৌর উপ-নির্বাচনে ১৮ মাস দায়িত্ব্যে থাকাকালীন সময়ে ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। সাধারণ জনগণ আমার প্রতি সন্তুষ্ট। তাই আমি বিশ্বাস করি আ.লীগ মনোনয়ন বোর্ড ও জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিবেন। তবে আমী দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানাবো।’

পৌর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো.শাহজাহান মিয়াও মেয়র পদে নির্বাচন করতে আ.লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী।তিনি এলাকায় আ.লীগের ত্যাগী নেতা হিসেবে পরিচিত। আ.লীগের দু:সময়ের সহচর। আগে থেকেই এবার নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য তিনিও জোর লবিং তৎপরতা চালাচ্ছেন। করোনাকালীন দু:সময়ে তিনি নিজস্ব অর্থায়ন ও উদ্যোগে কর্মহীনদের খাদ্যসামগ্রী দিয়ে সহযোগীতা করেছেন।তিনি মানুষের দু:সময়ে পাশে থাকার চেষ্টা করেন।কর্মী বান্ধব রাজনীতি পছন্দ করেন। পৌরসভা আ.লীগকে সুসংগঠিত করণে তার ভূমিকা ছিলো ইতিবাচক। নেতা-কর্মীদের সুখে-দু:খে পাশে থাকেন তিনি।

মো.শাহজাহান মিয়া জানান,’আমি দলের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করেছি। সাধ্যমত চেষ্টা করেছি মানুষের থাকতে।আ.লীগের দূর্দিনে মাঠেঘাটে কাজ করে দলকে সুসংগতি করেছি।জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর আমার আস্থা তিনি ত্যাগী আ.লীগ নেতাদের মূল্যায়ন করবেন। তাই আমি আশাবাদী নেত্রী আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিবেন।’ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি খন্দকার শাহ-জাহান অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে মেয়র পদে আ.লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনিও বিগত দিনে পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ড দলীয় কর্মকাণ্ড চালিয়ে চাঙ্গা রেখেছেন।বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করে নিজের শক্ত অবস্থান তৈরী করেছেন।করোনাকালীন সময়ে তার বিশাল কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে কৃষকদের ধান কেটে দিয়েছিলেন।কর্মহীনদের খাদ্য সামগ্রী দিয়ে সহায়তা করেছেন। তিনিও নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন পেতে উপর মহলে যোগাযোগ রাখছেন।

খন্দকার শাহজাহান বলেন,’ আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের প্রতি আস্থাশীল, তিনি যোগ্যদেরই মনোনয়ন দিবেন।আমি বিশ্বাস করি পৌরসভা নির্বাচনে তিনি তরুণ হিসেবে আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিবেন।’ পৌরসভার সাবেক মেয়র মরহুম শাহ-আলম চৌধুরীর মেয়ে মেয়র নির্বাচন করার জন্য তাসলিমা সিমিন চৌধুরীও বাংলাদেশ আ.লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন চাইবেন। তিনি আজ প্রায় ২ বছর যাবৎ নির্বাচনের প্রাকপ্রস্তুতি হিসেবে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।ধর্মীয় উপাসনালয়ে দান করেন। গেলো বছরে শীতার্তের মাঝে কম্বল বিতরণ ও করোনাকালীন সময়ে কর্মহীনদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী, শাড়ি ও লুঙ্গি বিতরণ করে আলোচনায় আসেন।

সিমিন চৌধুরী জানান, ‘আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার উপর আস্থাশীল। এ দেশে নারী নেতৃত্বের ক্ষমতায়নে তিনি উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। চারোদিকেই আজ নারী নেতৃত্বের বিকাশ ঘটছে।এ জন্য আমি আশাবাদী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন দিয়ে এ পৌরসভায় মেয়র নির্বাচন করার সুযোগ দিবেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত




ই-মেইলে সর্বশেষ সংবাদ

বিনামূল্যে সর্বশেষ সংবাদ সরাসরি আপনার ই-মেইলে পেতে আজই সাবস্ক্রাইব করুন!

তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক।
আমাদের গোপনীয়তার নীতি




এক ক্লিকে জেনে নিন বিভাগীয় খবর




করোনা তথ্য
দেশে আক্রান্ত
১,৯৯,৩৫৭
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
দেশে সুস্থ
১,০৮,৭২৫
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
দেশে মৃত্যু
২,৫৪৭
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
বিশ্বে মৃত্যু
৫,৯৩,০৭২
Developed By Ariful
করোনা তথ্য
বিশ্বে আক্রান্ত
১,৩৯,২১,৬৯৯
Developed By Ariful
©মেঘনা নিউজ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত