বৃহস্পতিবার , ২১শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
শিরোনাম :
গৌরীপুরে সাংবাদিক শামীম খানের ৪১তম জন্মদিন পালিত চাঁপাইনবাবগঞ্জে ডিএনসির অভিযানে মাদক উদ্ধার,বাইক জব্দ,আটক ৭ বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে আমি নৌকা প্রতীক পাওয়ার বিষয়ে শতোভাগ আশাবাদীঃসোহেল রানা চাঁপাইনবাবগঞ্জের তেলকুপি সীমান্তে ইয়াবা উদ্ধার ইবি শেখ রাসেল হলের কমিটি ঘোষণা  চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উদযাপনে আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত ধর্মপাশায় আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত তরিকত ঐক্য পরিষদের উদ্যোগে পবিত্র ঈদ-ই মিলাদুন্নবী উদযাপন ধর্মপাশায় নদীর পানিতে পড়ে গিয়ে সাতবছর বয়সী এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু কোম্পানীগঞ্জ তেলিখাল ইউপি স্বামী ও স্ত্রী চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা চাঁপাইনবাবগঞ্জে চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যের যোগ সাজশে সরকারি গাছ বিক্রয়

গৌরীপুর নন্দুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বরাদ্দকৃত টাকার অনিয়মের অভিযোগ




ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ২নং গৌরীপুর ইউনিয়নের ১৭৭ নং নন্দুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে স্লিপ, ক্ষুদ্র মেরামত ও উন্নয়ন বরাদ্দের সাড়ে চার লাখ টাকার কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ভাঙ্গা টিনের ঘরে অপরিসর শ্রেণি কক্ষে ছাত্রছাত্রীদের গাদাগাদি করে বসিয়ে চলছে পাঠদান। উপরে সিলিং না থাকায় প্রচন্ড গরমে ঘামে ভিজে আছে শিক্ষার্থীরা। কোভিড-১৯ সরঞ্জাম হাত ধুয়ার পানির ড্রাম, সাবান, স্প্রে মেশিন, ডাস্টবিন বাকেট অফিস কক্ষে রাখা।

এছাড়াও বিদ্যালয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ ও সাইনবোর্ড নেই। মূল সড়ক থেকে বিদ্যালয়ে প্রবেশ পথের রাস্তায় পানি জমে আছে।

বরাদ্দের টাকায় কি কাজ হয়েছে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ে দায়িত্ব প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সুলতানা রাজিয়া জানান- স্লিপের টাকায় কোভিড-১৯ সুরক্ষা সামগ্রী ও ছয় জোড়া বেঞ্চ ক্রয় করেছেন, ক্ষুদ্র মেরামতের টাকায় বিদ্যালয়ের ফ্লোর পাকা করণ ও ৬ জোড়া বেঞ্চ বানিয়েছেন। কোভিড-১৯ সুরক্ষা সামগ্রী অফিসে থাকার ব্যাপারে তিনি বলেন- মাঝে মাঝে এগুলো বাইরে রাখা হয়।

তিনি আরও জানান- নন্দুরা প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। তারপর বিদ্যালয়টি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকে। ২০১২ সালে পুণরায় চালু করা হয়। ২০১৪ সালে বিদ্যালয়টি জাতীয় করণ করা হয়েছে।

বিদ্যালয়ের সাবেক প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেন- বিদ্যালয়ে বর্তমানে যিনি প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি মূলত সহকারী শিক্ষক। সম্প্রতি বরাদ্দের টাকায় যে কাজ করা হচ্ছে তা অত্যন্ত নিম্নমানের। প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের কাজের ব্যাপারে কারো সাথে কোন পরামর্শ করেন না।

এডহক কমিটির সভাপতি উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা আবু রায়হান জানান- সুলতানা রাজিয়া বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, তিনি আনঅফিসিয়ালী প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন। স্লিপের ৫০ হাজার ও ক্ষুদ্র মেরামতের দুই লাখ টাকার কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। উন্নয়ন বরাদ্দের দুই লাখ টাকা এখনো উত্তোলন করা হয়নি। বিদ্যালয়ে বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে বলে জানান তিনি।

গৌরীপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিকা পারভীন বলেন- বরাদ্দের টাকায় বিদ্যালয়ে উন্নয়নমূলক কাজের জন্য নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। কাজের কোন অভিযোগ থাকলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

পাঠকের মতামত




ই-মেইলে সর্বশেষ সংবাদ

বিনামূল্যে সর্বশেষ সংবাদ সরাসরি আপনার ই-মেইলে পেতে আজই সাবস্ক্রাইব করুন!

তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক।
আমাদের গোপনীয়তার নীতি




এক ক্লিকে জেনে নিন বিভাগীয় খবর




করোনা তথ্য
দেশে আক্রান্ত
১৫,৬৪,৪৮৫
১৪ অক্টোবর, ২০২১
করোনা তথ্য
দেশে সুস্থ
১৫,২৬,৩৬৮
অক্টোবর ১৪, ২০২১
করোনা তথ্য
দেশে মৃত্যু
২৭,৭৩৭
অক্টোবর ১৪, ২০২১
করোনা তথ্য
বিশ্বে মৃত্যু
৪৮,৯১,৯৪১
অক্টোবর ১৪, ২০২১
করোনা তথ্য
বিশ্বে আক্রান্ত
২৪,০০,৬১,৩২৭
অক্টোবর ১৪, ২০২১
©মেঘনা নিউজ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত