বৃহস্পতিবার , ৯ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
শিরোনাম :
গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করোনা আক্রান্ত ১১২,মৃত্যু ১ ভূরুঙ্গামারীতে শ্রমিকদের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ বিতরণ সাপাহারে করোনা প্রতিরোধে লাল ফ্লাগ টাঙ্গালো ছাত্রলীগ কর্মীরা কোভিড-১৯ প্রতিরোধে আদেশ অমান্য করায় চরফ্যাসনে ৮ জনের জরিমানা কুড়িগ্রামের উলিপুরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত নাগরপুরে করোনা সন্দেহে চিকিৎসক সহ ৯ জনের নমুনা সংগ্রহ ‘শুধু কালোজিরা ও মধু খেয়ে আমি করোনা থেকে সুস্থ হয়েছি’ করোনা আক্রান্ত স্বামীর পাশে সারাক্ষণ থাকা স্ত্রীর করোনা নেগেটিভ! গরিবের ৫৬০ বস্তা চালসহ আ’লীগ চেয়ারম্যান গ্রেফতার ত্রাণ চাওয়ায় এমপি বললেন, হাওরে গিয়ে ডুব দে!
বড়লেখায় চারজনকে হত্যা করে খুনির আত্নহত্যা

বড়লেখায় চারজনকে হত্যা করে খুনির আত্নহত্যা

মোঃ জাকির হোসেন,জেলা প্রতিনিধি,মৌলভীবাজারঃ মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার পাল্লাতল চা বাগানে স্ত্রী,শাশুড়ি ও দুই প্রতিবেশীকে হত্যা করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন নির্মল নামের এক ব্যক্তি। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৫ জনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ সয্যা বিসিষট হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নির্মল প্রথমে তার স্ত্রীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। এবং পরে মেয়েকে বাঁচাতে আশা তার শাশুড়িকে ও পরে দুই প্রতিবেশীকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করিলে ঘটনাস্থলেই চারজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে খুনি নিজের ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায় পারিবারিক কলহের জের ধরে নির্মল নামে ওই যুবক চারজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। নির্মল ছাড়া চারজনই চা বাগানের শ্রমিক।আজ রোববার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। বড়লেখা থানার ওসি মো: ইয়াসিনুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তিনি ও এলাকাবাসী জানান অভিযুক্ত খুনি নির্মল মাদকাসক্ত ছিলো হত্যার শিকার চারজন ও হত্যাকারী হলেন নির্মল (৪০),তার স্ত্রী জলি(৩৫),তার শ্বাশুরী লক্ষী(৫০)পাশের ঘরের বসন্ত বাবু (৫৫),বসন্তের মেয়ে শিউলি (১৬) ও বসন্তের স্ত্রী কানন গুরুতর আহত হন । চা বাগানের একজন কর্মকর্তা জানান, নির্মল অন্য এলাকার বাসিন্দা বছর খানিক আগে ডলির সঙ্গে তার বিয়ে হয়। তারপর থেকে নির্মল শ্বশুর বাড়িতেই থাকেন, প্রতিবেশীরা জানান, ভোর ৫টার দিকে নির্মল ও ডলির মধ্যে বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হলে, একপর্যায়ে নির্মল ডলিকে মারধর করতে থাকলে ডলি আত্তরক্কার্তে দৌড়ে অন্য ঘরে বাবা মায়ের কাছে চলে আসলে,নির্মল ধারালো অস্ত্র দিয়ে ডলিকে অতর্কিত ভাবে কোপাতে থাকে। তখন মেয়েকে রক্ষা করতে তার শাশুড়ি ছুটে আসলে তাঁকেও কোপায় নির্মল, তাদের আর্তচিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে বসন্ত ও শিউলি সেখানে ছুটে আসলে কিছু বুঝে ওটার আগেই তাদের দুজনকে ও এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে নির্মল। পরে চারজনের মৃত্যু নিশ্চিত হলে নির্মল নিজের ঘরে গিয়ে আত্মহত্যা করে।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমদ ও বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াসিনুল হক। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় জেলাজুড়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

ইমেইলে সর্বশেষ সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ সরাসরি আপনার ইনবক্সে পেতে আজই গ্রাহক হোন!

তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক।




এক ক্লিকে জেনে নিন বিভাগীয় খবর

©মেঘনা নিউজ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত