বুধবার , ৩রা জুন, ২০২০ ইং
মোট আক্রান্ত

৩৬৭৫১

সুস্থ

৭৫৭৯

মৃত্যু

৫২২

ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর

 ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সোয়া চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ৭০টি সেতু নির্মাণ করা হবে

 ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সোয়া চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ৭০টি সেতু নির্মাণ করা হবে

Ad_970x120

  মোঃ ইবাদুর রহমান জাকির, সিলেট প্রতিনিধিঃ ঢাকা-সিলেট চার লেন করতে বৈঠক ডেকেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। সেখানে সিলেট বিভাগের মন্ত্রী, এমপি, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতাদের ডেকেছেন তিনি। তবে বৈঠক শুরুর আগেই ডেকে এনেছেন সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রকৌশলীদের। আর বৈঠকে ঢুকে প্রথমেই সেই ইঞ্জিনিয়ারদের খোঁজ করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বুধবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুর পৌনে ১২টায় রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাকে এ বৈঠক শুরু হয়। সড়কের প্রকৌশলীরা ঢাকা-সিলেট চার লেন কবে শুরু হচ্ছে, কীভাবে সেই কাজ হবে এবং তার প্রক্রিয়াগুলো এখানে তুলে ধরবেন। এই প্রকল্পের কাজ শুরু নিয়ে সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধে ধীর গতির অভিযোগ রয়েছে। সেসব নিয়েই হচ্ছে বৈঠকে। দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়ক ঢাকা-সিলেট চার লেন। এ মহাসড়ক আন্তর্জাতিক রুট হিসেবেও চিহ্নিত। তার ওপর দুর্ঘটনার ঝুঁকি আর উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মানুষের যাতায়াতে দুই লেনের মহাসড়কটি চার লেন করার স্বপ্ন দেখানো হয় প্রায় এক যুগ আগে। প্রতিশ্রুতি দিয়ে দুটি নির্বাচনে দুই মেয়াদে ক্ষমতায় আসে বর্তমান সরকার। এর মধ্যে দ্বিতীয় মেয়াদে একটি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেও তা বাতিল করা হয়। সর্বশেষ এশিয়ান ডেভলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি) অর্থায়নে সম্মত হয়। আগামী বছরের মাঝামাঝিতে সড়কের কাজ শুরু হতে পারে এমনটা মনে করছে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর। অধিদফতর সূত্র জানায়, প্রকল্পের ডিপিপি বা ডকুমেন্টেশন প্রণয়নের জন্য কনসালটেন্ট নিয়োগ করা হয়েছে। পাঁচ মাসের মধ্যে তারা এটি প্রস্তুত করবে। এখন ভূমি অধিগ্রহণ ও সমীক্ষার কাজ চলমান রয়েছে। প্রকল্প প্রস্তাব অনুযায়ী, ঢাকার কাঁচপুর থেকে সিলেট পর্যন্ত ২২৬ কিলোমিটার সড়ক দুই লেন থেকে চারলেনে উন্নীত করা হবে এ প্রকল্পে। এই চারলেনের দুইপাশে আলাদা সার্ভিস লেন থাকবে। যেখানে ‘স্লোমুভিং’ যানবাহন চলাচল করবে। ২২৬ কিলোমিটার দীর্ঘ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে সোয়া চার কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের ৭০টি সেতু নির্মাণ করা হবে। চার হাজার ৩৫৮ মিটার দীর্ঘ চারটি ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে ভৈরব, সিলেটের গোয়ালাবাজার, তাজপুর ও দয়ামীর বাজার এলাকায়। নরসিংদী, ভৈরব, ওলিপুর, লস্করপুর ও সিলেটে নির্মাণ করা হবে রেল ওভারপাস। এ মহাসড়ক হবে এশিয়ান হাইওয়ে-১ এবং এশিয়ান হাইওয়ে-২-এর অংশ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Ad_970x120

ইমেইলে সর্বশেষ সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ সরাসরি আপনার ইনবক্সে পেতে আজই গ্রাহক হোন!

তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় আমরা সর্বোচ্চ সতর্ক।




এক ক্লিকে জেনে নিন বিভাগীয় খবর

Ad_970x120

©মেঘনা নিউজ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত